মঙ্গলবার, ২২শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

আমার এনগেজমেন্ট হয়ে গেছে: জেনিফার লরেন্স

সেরাকণ্ঠ ডট কম :
ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৯
news-image

অস্কার পুরস্কার বিজয়ী মার্কিন অভিনেত্রী জেনিফার শ্রাদার লরেন্স (২৮) কবুল করলেন। স্বীকার করে নিলেন বয়ফ্রেন্ড কুক ম্যারোনির সঙ্গে তার এনগেজমেন্ট হয়ে গেছে। বিস্ময়কর সুন্দরী এই নায়িকার এমন সম্পর্ক নিয়ে অনেকদিন ধরেই নানা জল্পনা কল্পনা চলছিল। শেষ পর্যন্ত নিউ ইয়র্কে তার হাতে দেখা যায় বিশাল একটি আংটি। আর তাতেই ধরা পড়ে যান তিনি। ব্যস, কবুল করে নেন এনগেজমেন্টের কথা। হলিউড জগতে ভীষণ জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী। তার ছবি থেকে বিশ্বজুড়ে এ পর্যন্ত আয় হয়েছে ৫৭০ কোটি ডলারের বেশি।

২০১৫ ও ২০১৬ সালে বিশ্বে তিনিই ছিলেন সবচেয়ে বেশি দামি অভিনেত্রী। ২০১৩ সালে তিনি বিশ্ববিখ্যাত টাইম ম্যাগাজিনের ১০০ সবচেয়ে প্রভাবশালী মানুষের অন্যতম নির্বাচিত হন। ২০১৪ ও ২০১৬ সালে ফোর্বস ম্যাগাজিনের ১০০ সেলিব্রেটির তালিকায়ও ছিল জেনিফার লরেন্সের নাম।

‘সিলভার লাইনিংস প্লেবুক’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি জিতেছেন অস্কার পুরস্কার। একদিকে ব্যবসায় সফল, অন্যদিকে আকর্ষণীয় চেহারা। সব কিছু মিলে তিনি যুবক হৃদয় তো বটেই অসংখ্য বয়সী মানুষের হৃদয়ে কাঁপন ধরিয়ে দেন। তার দিকে হা করে তাকিয়ে থাকেন অসংখ্য পুরুষ। অনেকেই তার পাণি প্রার্থনা করেছেন। কিন্তু জেনিফার সেই স্থানটি সবাইকে দেন নি। গত সপ্তাহান্তে তাকে নিউ ইয়র্কে দেখা গেছে। সঙ্গে আর্ট ডিলার হিসেবে পরিচিত ম্যারোনি (৩৪)। তারা এক সঙ্গে রাতে ডেটিং করতে বেরিয়েছিলেন।

এ সময়ই জেনিফারের হাতে ধরা পড়ে অনেক বড় একটি আংটি। ম্যারোনির সঙ্গে তার প্রথম রোমান্টিকতা শুরু হয় ২০১৮ সালের জুনে। তার পর থেকে এই যুগলকে নিউ ইয়র্কের বহু সামাজিক অনুষ্ঠানে একসঙ্গে দেখা গেছে। ফলে তাদেরকে নিয়ে চারদিকে ব্যাপক আলোচনা, কানাঘুষা। একজন তথ্যদাতা বলেছেন, এ সময় তাদেরকে দেখে মনে হতো তারা উপভোগ করছেন। লোকজন তাদেরকে নিয়ে কথা বলাবলি করছে- এতে তারা মজা পাচ্ছেন। তবে জেনিফারের হাতের ওই আংটিটি খুবই চোখে পড়ার মতো। তারা একটি রেস্তোরাঁর এক প্রান্তে বসে ছিলেন। প্রথমে একা একা কিছু সময় বসে ছিলেন জেনিফার। এর কিছুক্ষণ পরে সেখানে গিয়ে যোগ দেন ম্যারোনি। জেনিফারের একজন মুখপাত্র তাদের এনগেজমেন্টের কথা স্বীকার করেছেন। তবে কবে তারা বিয়ে করবেন তা নির্ধারিত হয় নি।

উল্লেখ্য, এর আগে জেনিফার লরেন্স চুটিয়ে ডেটিং করেছেন ‘মাদার!’ ছবির পরিচালক ড্যারেন আরোনোফস্কির সঙ্গে। কিন্তু তাদের বয়সের ব্যবধান বিশাল। তাই সেই সম্পর্ক ভেঙে গেছে। ২০১৮ সালে এ সম্পর্ক নিয়ে কৌতুক করেছিলেন জেনিফার। তিনি বলেছিলেন, আমি পরিষ্কার করে বলছি, দীর্ঘদিন ধরে আমি যৌন সম্পর্ক স্থাপন করি না। আমার একটা সম্পর্ক (রিলেশনশিপ) গড়ে তোলা দরকার, যা ওখানে কঠিন ছিল।